mujibyear

কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল, ঢাকা


কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল, ঢাকা ১৯৫৪ সালে ১১.৫ একর ভূমির উপর ৭০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হয়। দীর্ঘ দিন যাবৎ জনবল ও চিকিৎসা সরঞ্জামাদির স্বল্পতার মধ্য দিয়ে দূর্বল চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম চলছিল। এহেন অবস্থার প্রেক্ষিতে পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের আধুনিক চিকিৎসা-সেবার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা “বাংলাদেশ পুলিশ হাসপাতালসমূহ আধুনিকায়ন (১ম পর্যায়ে ৭টি)” শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণ করেন। তিনি গত ১২/০৫/১৯৯৯ তারিখ বর্ণিত প্রকল্পের আওতায় কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল, রাজারবাগ, ঢাকায় ১০ তলা ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। তাঁর এই উদ্যোগের ফলে পুলিশ সদস্য ও তাদের পরিবারের চিকিৎসা সেবায় নতুন মাত্রা যোগ হয়। প্রকল্পটি ১ জুলাই ১৯৯৭ ইং তারিখে শুরু হয়ে ৩০ জুন ২০০৫ এ সফল ভাবে সমাপ্ত হয়। চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধির সাথে সাথে চিকিৎসা প্রার্থীর সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে। বর্তমানে অত্র হাসপাতালে বহির্বিভাগ, অন্তঃবিভাগ, অপারেশন থিয়েটার, প্যাথলজি, ফিজিওথেরাপীসহ মোট ১৫ (পনের) টি বিভাগ চালু রয়েছে।


মৌখিক পরীক্ষার তারিখ, সময় ও স্থান

COMPUTER.1JPGFE 0001

COMPUTER.1JPGFE 0002

Viava Exam date 0001

Viava Exam date 0002

Viava Exam date 0003

08-10-2021 তারিখ অনুষ্ঠিত লিখিত পরী্ক্ষার ফলাফল:

08.10.21 result 000108.10.21 result 0002

01-10-2021 তারিখ অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষার ফলাফল:

 Result 0001

Result 0002

 

 

পুলিশ বাহিনীর সদস্য সংখ্যা বর্তমানে প্রায় ২(দুই) লক্ষ ও তাদের পরিবারের সদস্যসহ প্রায় ১০ (দশ) লক্ষ সদস্যের চিকিৎসা সেবা পুলিশ হাসপাতাল হতে প্রদান করা হয়। এছাড়া আনসার বাহিনীর সদস্য ও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মাচারীদেরও চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে হয়। কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের প্রতিদিন বহির্বিভাগে ২০০০ থেকে ৩০০০ জন রোগী, ইমার্জেন্সি বিভাগে ২৫০ থেকে ৩০০ জন রোগী ও অন্তঃবিভাগে ৩৫০ থেকে ৫০০ জন রোগী চিকিৎসা নিয়ে থাকে। কোভিড-১৯ মহামারিতে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ৭০০ এর অধিক হয়ে থাকে। পুলিশ বাহিনীর সদস্য সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আশা রোগীর সংখ্যাও ক্রমশ: বৃদ্ধি পাচ্ছে। এছাড়া রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারীগণ এ হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা সেবা নিয়ে থাকেন।

ইতোমধ্যেই কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালকে ২৫০ শয্যা থেকে ৫০০ শয্যায় উন্নীত করণের জন্য অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। বিভিন্ন বিভাগে সেবা প্রদানের জন্য রাজস্ব খাতে জনবলের পদ সৃজন হয়েছে এবং আরো পদ সৃজনের উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে।

CoronaVirus




সার্ভিসসমূহ:

সিপিএইচ-এ যেসব প্রধান প্রধান মেডিকেল ইকুইপমেন্টস স্থাপন করা হয়েছে এবং যেসব সার্ভিস/সেবা রোগীদের দেয়া হয়ে থাকে তার মধ্যে রয়েছে:

০১) অত্যাধুনিক অপারেশন থিয়েটার

০২) ডায়ালাইসিস ইউনিট

০৩) ১৬০ স্লাইচ সিটিস্ক্যান মেশিন

০৪) এমআরআই মেশিন

০৫) ২৪ ঘন্টা ইমার্জেন্সি সার্ভিস

৬) ইকো-কার্ডিওগ্রাম সুবিধা

০৭) ডিজিটাল ম্যামোগ্রাফী

০৮) ইটিটি সুবিধা

০৯) ডিজিটাল এক্স-রে মেশিন

১০) ৪-ডি আল্ট্রাসনোগ্রাম মেশিন

১১) ব্লাড ব্যাংক

১২) সমস্ত হাসপাতালে সিসিটিভি সুবিধা

এছাড়া কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের কার্যক্রম ও রোগীর তথ্য ডিজিটাল ফরমেটে সংরক্ষণ ও মনিটরিং করার জন্য হসপিটাল ইনফরমেশন সিস্টেম, ল্যাবরেটরি ইনফরমেশন সিস্টেম সফটওয়ার চালু করা হয়েছে ।